Gangtok (গ্যাংটক)

হোটেল, রেস্তোরা, শপিং মল, দোকানপাট – এই সব নিয়ে ৫৫০০ ফুট উচ্চতায় সিকিমের রাজধানী শহর গ্যাংটক – পর্যটন মানচিত্রে খুবই জনপ্রিয় এক নাম। এখান থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘা ছাড়াও তুষারাছন্ন পান্ডিম, নরসিং, সিনোল চু – গিরিশৃঙ্গ ও দৃশ্যমান।

Yumthang Valley (ইয়ুমথাং ভ্যালি)

১১৮০০ ফুট উচ্চতায় উত্তর সিকিমের ভ্যালি অব ফ্লাওয়ারস বা ফুলের উপত্যকা হল ইয়ুমথাং ভ্যালি। এপ্রিল মে মাসে বিভিন্ন রঙের রডোডেনড্রন ও নানা রকম ফুলে ভরে ওঠে, আবার শীতে গভীর বরফে ঢাকা পড়ে।

Gurudongmar Lake (গুরুদোংমার লেক)

তুষারাবৃত গিরিশ্রেনি ঘেরা ১৭৮০০ ফুট উচ্চতায় উত্তর সিকিমের এক অনিন্দ্যসুন্দর সরোবর গুরুদোংমার লেক। গুরু পদ্মসম্ভবের স্মৃতিবিজড়িত এই সরোবর বৌদ্ধদের কাছে অত্যন্ত পবিত্র হিসেবে মান্যতা পায়।

Aritar (আরিতার)

৪৬০০ ফুট উচ্চতায়, বাংলা সীমান্তে পান্না সবুজ রঙের ১১২০ ফুট দীর্ঘ ও ২৪০ ফুট প্রস্থ সিকিমের জনপ্রিয় লেক আরিতার, পোশাকি নাম লামপোখরি।

Pelling (পেলিং)

Pelling (পেলিং)

৬৮০০ ফুট উচ্চতায় সিকিমের অত্যন্ত জনপ্রিয় পাহাড়ি জনপদ পেলিং। কাঞ্চনজঙ্ঘা, পান্ডিম, কোকতাং, কুম্ভকর্ণ, রাতোং, কাব্রু ডোম, জোপুনো, সিম্ভো, নারসিং ছাড়াও জানা নাম না-জানা নানান শিখর দৃশ্যমান। দিনরাত জুড়ে কাঞ্চনজঙ্ঘার পাগলকরা মনমুগ্ধকর রূপ ই পেলিং এর জনপ্রিয়তার মুল কারন।

Ravangla (রাবংলা)

সুউচ্চ মৈনাম পাহাড়ের পাদদেশে ৭০১৬ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত দক্ষিণ সিমিমের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র রাবংলা। আবহাওয়া পরিষ্কার থাকলে নরসিং, পান্ডিম সহ তুষারশৃঙ্গ শ্রেণী এখান থেকে চোখে পড়ে।

WhatsApp chat