Pelling (পেলিং)

Pelling (পেলিং)

৬৮০০ ফুট উচ্চতায় সিকিমের অত্যন্ত জনপ্রিয় পাহাড়ি জনপদ পেলিং। কাঞ্চনজঙ্ঘা, পান্ডিম, কোকতাং, কুম্ভকর্ণ, রাতোং, কাব্রু ডোম, জোপুনো, সিম্ভো, নারসিং ছাড়াও জানা নাম না-জানা নানান শিখর দৃশ্যমান। দিনরাত জুড়ে কাঞ্চনজঙ্ঘার পাগলকরা মনমুগ্ধকর রূপ ই পেলিং এর জনপ্রিয়তার মুল কারন।

 

কিভাবে যাবেন পেলিং ?

কোলকাতা থেকে ফ্লাইট, ট্রেনে বা বাসে করে শিলিগুড়ি পৌঁছে, গাড়িতে পেলিং এর দূরত্ব প্রায় ১৮০ কিমি। ট্রেন ও বাস টিকিট রিসার্ভেশন বা গাড়ি বুকিং এর জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

 

পেলিং এ কোথায় থাকবেন ?

এখানে থাকার জন্য বেশ কিছু সাধারন ও উচ্চমানের হোটেল, রিসর্ট, হলিডে হোম, হোম স্টে রয়েছে।  সঠিক মূল্যে, ভালোমানের হোটেল বুকিং এর জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

 

পেলিং এ কি কি দেখবেন ?

সারাদিন হোটেল রুমে বসে কাঞ্চনজঙ্ঘা দর্শন ছাড়াও গাড়ি নিয়ে পেলিং এর সাইটসিয়িং করতে যাওয়া যায়, প্রথমেই পেলিং থেকে ১২ কিমি দুরের রিম্বি ফলস দেখে নেওয়া, এরপর ১৮২০ মি উঁচু চারপাশ প্রেয়ার ফ্ল্যাগ ও গাছ গাছালিতে ছাওয়া উইশিং লেক খেচিপেরি। সাথে ৩০০ ফুট উঁচু থেকে দুর্দম বেগে নামা কাঞ্চনজঙ্ঘা ফলস, ১৯৯৩ এ ২টি পাহাড় জুড়ে তৈরি ১৯৮ মি লম্বা এশিয়ার দ্বিতীয় গভীরতম গর্জ সিংসোর সেতু। একে একে সিকিমের দ্বিতীয় প্রাচীন রাজধানীর ধ্বংসাবশেষ রাবডাংৎসে, সাঙ্গে ফলস, প্রেমিয়াংশি গুম্ফা ইত্যাদি।

 

পেলিং ভ্রমণের সেরা সময়ঃ

সেপ্টেম্বর থেকে জুন মাস এখানে ভ্রমণের সেরা সময় হলেও, বছরের যে কোন সময়, পেলিং ঘুরে আসতে পারেন।

 

জানেন কি?

  • ১৬৭০ সালে ইয়াকসাম ছেড়ে রাবডাংৎসে দ্বিতীয় রাজধানী গড়েন দ্বিতীয় চোগিয়াল, যা থাকে ১৮১৪ খ্রি পর্যন্ত।

 

এই ট্যুর সম্পর্কে আরো বিশদে জানতে ও বুকিং এর জন্য যোগাযোগ করুন – 9830222022 / 9674486001

Share this tourist place with your family & friend with below link.

WhatsApp chat