Cherrapunji (চেরাপুঞ্জি)

প্রায় ১৩০০ মি উচ্চতায় খাসি সাহিত্য ও সংস্কৃতির পীঠস্থান চেরাপুঞ্জি – অনন্যসুন্দর কিছু জলপ্রপাত, চুনাপাথরের গুহা, কয়লা, কমলালেবুর বাগিচা ও মধুর জন্য বিখ্যাত হলেও বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বৃস্টি হবার রেকর্ডের জন্য এর পরিচিতি। তবে গত কিছুকাল চেরাপুঞ্জিতে বৃষ্টি অনিয়মিত হয়ে পড়েছে।

 

কিভাবে যাবেন চেরাপুঞ্জি ?

কোলকাতা থেকে সরাসরি ফ্লাইট এ শিলং আসা যায়, তবে ট্রেন বা ফ্লাইটে গুয়াহাটি এসে, গাড়িতে শিলং আসাই জনপ্রিয়, গুয়াহাটি থেকে শিলং এর দূরত্ব প্রায় ১০৫ কিমি, আর শিলং থেকে চেরাপুঞ্জি প্রায় ৫৫ কিমি। ফ্লাইট, ট্রেন, বাস বা গাড়ি বুকিং এর জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

 

চেরাপুঞ্জি ভ্রমণে এ কোথায় থাকবেন ?

শিলং থেকে দিনে দিনে চেরাপুঞ্জি ঘুরে আসা গেলেও, চেরাপুঞ্জিতে থাকার জন্য বেশ কিছু সাধারন ও উচ্চ মানের হোটেল, রিসর্ট ও হোম স্টে আছে। সঠিক মূল্যে ভালমানের হোটেল বুকিং এর জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

 

চেরাপুঞ্জিতে কি কি দেখবেন ?

শিলং থেকে চেরাপুঞ্জি যাবার পথের নয়নাভিরাম নৈসর্গিক শোভা অতুলনীয়। দ্রষ্টব্য স্থানগুলির মধ্যে অন্যতম বিস্ময় রহস্যে ভরা প্রাচীন গুহা, সাথে বিশ্বের চতুর্থ উচ্চতম জলপ্রপাত মৌসমাই জলপ্রপাত, কিংবদন্তিতে ঘেরা নোহ-কালিকাই ফলস খুব জনপ্রিয়।

 

চেরাপুঞ্জি ভ্রমণের সেরা সময় ?

সেপ্টেম্বর থেকে জুন মাস চেরাপুঞ্জি ভ্রমনের সেরা সময় হলেও, মনোরম জলবায়ুর জন্য বছরের যে কোন সময় চেরাপুঞ্জি ঘুরে আসা যায়।

 

জানেন কি ?

  • ১৮৩৫ থেকে ১৮৬৪ অবধি ব্রিটিশের উ-পূর্ব ভারতের সদর দপ্তর ছিল চেরাপুঞ্জি।
  • কিংবদন্তি রয়েছে, দ্বিতীয় স্বামীর হাতে মেয়ের মৃত্যুতে শোকে-দুঃখে মা লিকাই পাহাড় থেকে ঝাঁপিয়ে পড়েন, সেই থেকেই নোহ – কালিকাই ফলস এর নামকরন।

 

এই ট্যুর সম্পর্কে আরও বিশদে জানতে ও বুকিং এর জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন – 9830222022 / 9674486001

Share this tourist place with your family & friend with below link.

WhatsApp chat